১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৮:০১

পাটুরিয়ায় ঘরমুখো মানুষের ঢল, তিন গুণ ভাড়া দিয়েও সিট নেই বাসে

ঈদুল আজহার ছুটি শেষে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে রাজধানীমুখী মানুষ ফিরতে শুরু করেছেন। যাত্রীর তুলনায় রয়েছে পরিবহন স্বল্পতা। এই সুযোগে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বাসে। পাটুরিয়া থেকে গাবতলীগামী বাসে ১৫০ টাকার ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ৪০০ টাকা পর্যন্ত। আজ শনিবার সকালে সরেজমিনে পাটুরিয়া-আরিচা ঘাট এলাকায় ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

জানা যায়, পাটুরিয়া ঘাট থেকে গাবতলী পর্যন্ত পদ্মা লাইন বাসের নিয়মিত ভাড়া জনপ্রতি ১৫০ টাকা, সাভারের ভাড়া ১২০ টাকা ও নবীনগরের ভাড়া ১০০ টাকা। হিমাচল, নীলাচল, সেলফি, যাত্রীসেবা, বিআরটিসি, নিরাপদসহ বিভিন্ন বাসের ভাড়াও একই রকম। কিন্ত আজ জনপ্রতি ভাড়া গুনতে হচ্ছে ৩০০-৪০০ টাকা।

পাটুরিয়া গিয়ে ঘাটে দেখা গেছে, যাত্রীদের ভিড়ে লঞ্চ ও ফেরিতে পা রাখার জায়গা নেই। লঞ্চ থেকে নেমে গাড়িতে সিট পাচ্ছেন না অনেকে। বাসে তিন-চার গুণ বেশি ভাড়া দিয়েও যেতে হচ্ছে দাঁড়িয়ে। ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানেও যাত্রী বহন করা হচ্ছে।

পাবনা থেকে আজ সকাল ৮টার দিকে আরিচা ঘাটে আসেন গার্মেন্টসকর্মী সাথী খাতুন, সরলা আক্তার ও মর্জিনা খাতুন। সকাল ৯টায়ও তারা বাস না পেয়ে অপেক্ষায় বসে ছিলেন। তারা জানান, ১৫০ টাকার ভাড়া ৪০০ টাকা নিচ্ছে। তবু সিট পাওয়া যাচ্ছে না।

বাস মালিক জসীম উদ্দিন জানান, যাত্রী বেশি থাকার সুযোগে কিছু বাসচালকরা অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছেন।

শিবালয় বাস মালিক সমিতির সভাপতি আলাল উদ্দিন বলেন, অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই।

ওসি শাহিনুর রহমান জানান, এখনো কেউ এ বিষয়ে অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।