৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১১:১১

যুগপৎ আন্দোলনে সরকারের পতন ঘটানো হবে

বিরোধী সব রাজনৈতিক দলগুলাকে নিয়ে যুগপৎ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকার পতন ঘটানো হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার দুপুরে খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ে কল‍্যাণ পার্টির সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, আন্দোলন কর্মসূচি ও বৃহত্তর আন্দোলনে যেতে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির সঙ্গে আমাদের ঐকমত্য হয়েছে।

সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে দিতীয় দফায় সংলাপ শুরু করেছে বিএনপি। সংলাপের প্রথম দিনে রোববার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে কল‍্যান পার্টির সঙ্গে সংলাপ হয়। সেখানে বিএনপির নেতৃত্ব দেন দলটিল মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কল‍্যান পার্টির নেতৃত্ব দেন পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম।

সংলাপ শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন নিশ্চিত করা, নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন, বিএনপির চেয়ারপারসনের মুক্তিসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির আন্দোলনের বিষয়েও আমরা একমত হয়েছি। একইসঙ্গে সরকার পতনের যুগপৎ আন্দোলন বেগবান করা ইস্যুতে বিএনপি ও বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মধ্যে ঐকমত্য হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলে যুগপৎ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকার পতনে আমাদের সঙ্গে একমত কল্যাণ পার্টি। যে ২৩ দলের সঙ্গে প্রথম দফায় সংলাপ হয়েছিল, তারা ছাড়াও অন্য যেকোনো দল এ দফায় সংলাপে আসতে পারে বলেও জানান বিএনপি মহাসচিব।

এ সময় কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, যুগপৎ আন্দোলনের দিন-তারিখ প্রকাশ না করতে অনুরোধ করা হয়েছে, চমক আছে, অপেক্ষা করুন। এবার বিজয়ের কোনো বিকল্প নেই। বিজয় আমাদের হবেই।

বিএনপির পক্ষে সংলাপে আরও অংশ নেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। আর কল্যাণ পার্টির মহাসচিব আবদুল আউয়াল মামুন, অতিরিক্ত মহাসচিব নুরুল কবির পিন্টু, যুগ্ম-মহাসচিব সোহেল মোল্লা, আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকিব, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মাহবুবুর রহমান শামিম, উত্তরের সেক্রেটারি জামাল হোসেন, মহানগর দক্ষিণের সভাপতি আবু হানিফ ও উত্তরের সেক্রেটারি আবু ইউসুফ ।