২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৪:৫৯

বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রী নাদিয়াকে চাপা দেওয়া বাসের চালক-সহকারী রিমান্ডে

রাজধানীতে বাসচাপায় নর্দান ইউনিভার্সিটির ছাত্রী নাদিয়া নিহতের ঘটনায় করা মামলায় ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের চালক মো. লিটন ও হেলপার মো. আবুল খায়ের দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার তাদেরকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদেরকে সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আল ইমাম রাজন।

শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মোস্তফা রেজা নূরের আদালত এ আদেশ দেন।

এর আগে সোমবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটের দিকে বাড্ডার আনন্দনগর এলাকায় সার্জেন্ট টাওয়ারের পেছন থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

রোববার রাজধানীর প্রগতি সরণিতে বেপরোয়া বাসটি ছাত্রী নাদিয়া আক্তারকে বহনকারী মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়।

মুহূর্তেই বাসের দুই চাকার মাঝামাঝি স্থানে ছিটকে পড়ে নাদিয়া। কিন্তু বাসটি না থামিয়ে তড়িঘড়ি করে ওই ছাত্রীর ওপর দিয়ে গাড়িটি চালিয়েই সটকে পড়ে বাসচালক। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এর পর হাসপাতালে নিলে সেখানে স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে পুরো এলাকা।

ছাত্রীর বাবা মো. জাহাঙ্গীর কাজ করেন নারায়ণগঞ্জের একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে। তিন বোনের মধ্যে নাদিয়া ছিল সবার বড়। তাকে নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখতেন বাবা। নিমিষেই সেই স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেয় ভিক্টর পরিবহণের বাস।