২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৩:৫৭

শাশুড়ির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় গিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করলেন আলভেস

ধর্ষণের অভিযোগে কারাগারে রয়েছেন ব্রাজিলের তারকা ফুটবলার দানি আলভেস। গেলো বছরের ডিসেম্বরে শাশুড়ির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নিতে তিনি মেক্সিকো থেকে স্পেনের বার্সেলোনায় যান। সেখানে অবস্থানকালে একটি নাইট ক্লাবে গিয়ে ২৩ বছর বয়সী এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে আলভেসের বিরুদ্ধে। সোমবার স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা অভিযোগকারী ওই তরুণীর বক্তব্য বিষয়ক এক খবর প্রকাশ করে। সেখানে স্পেনের দৈনিক লা ভ্যানগার্ডিয়ার বরাত দিয়ে ওই তরুণীর বলা লোমহর্ষক ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে।

খবরে ভুক্তভোগীর বক্তব্য উল্লেখ করে বলা হয়, নাইট ক্লাবে আলভেস প্রথমে ওই তরুণী ও তার কয়েকজন বন্ধুকে ভিআইপি টেবিলে বসার অনুরোধ করেন। সে সময় হঠাৎ করে তাদের গায়ে হাত দেয়া শুরু করেন এবং ভুক্তভোগীর কানে পর্তুগিজ ভাষায় কিছু বলেন। ওই তরুণী বাথরুমে গেলে সেখানে তাকে আটকে রাখেন ব্রাজিল তারকা। পরে ওই তরুণীকে মেঝে ফেলে দেন তিনি।

ভুক্তভোগীর বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, মেঝেতে ফেলে দিয়ে আলভেস তার সঙ্গে জোরপূর্বক আপত্তিকর কাজ করেন এবং বাজে ভাষায় কথা বলতে থাকেন। এদিকে বিষয়গুলো আদালতে অস্বীকার করেন সাবেক বার্সেলোনা ডিফেন্ডার।

মার্কা মালয়েশিয়ান টিভি-৩-এর বরাত দিয়ে আরেক খবর জানিয়েছে, আদালতে আলভেস তিনটি বিষয়ে কথা বলেন। প্রথমত, যৌন হয়রানির অভিযোগ আনা তরুণীকে তিনি চেনেন না। দ্বিতীয়ত, ওই তরুণীকে আলভেস দেখেছেন, কিন্তু সে সময় তার সঙ্গে কিছুই ঘটেনি। তৃতীয়ত, ওই তরুণী নিজে থেকে এসে আলভেসের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন।

আলভেসের এমন কথা শুনে যে কারো বিব্রত হওয়ারই কথা। বাস্তবেও সেটিই ঘটেছে। আলভেসের বলা কথাগুলো শুনে জজ তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এদিকে আলভেসের ঘটনাটি নিয়ে তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ। এরই মধ্যে ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে এবং সিসি ক্যামেরা ফুটেজ পরীক্ষা করেছে তারা।