২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ৭:৫৯
শিরোনাম:

কাশ্মীরকে কয়েদখানা বানিয়ে দেওয়া হয়েছে অভিযোগ কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরীর

রাশিদ রিয়াজ : ভারতের লোকসভায় জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল উপস্থাপন করার পর এ নিয়ে তুমুল বিতর্কে কংগ্রেসের সাংসদ অধীর চৌধুরী দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে লক্ষ্য করে বলেন, আমার মনে হয় না, আপনি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের কথা ভেবেছেন। আপনি সব নিয়ম ভেঙেছেন এবং রাতারাতি একটি রাজ্যকে ভেঙে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করেছেন। আপনি বলছেন, এটা অভ্যন্তরীণ বিষয়। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে আগে হওয়া দ্বিপাক্ষিক চুক্তিগুলি থাকা সত্ত্বেও বলবেন এটা অভ্যন্তরীণ বিষয়? সিমলা চুক্তি, লাহোর চুক্তি সত্ত্বেও কী ভাবে এটি অভ্যন্তরীণ বিষয়? কেন এই পরিস্থিতি তৈরি হল? কাশ্মীরকে কয়েদখানা বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এরপরও আপনি বলছেন ( অমিত শাহ) নিয়ম ভেঙে রাজ্য ভাগ করেছে কেন্দ্র।

এর আগে লোকসভায় অমিত শাহ বলেন, জম্মু ও কাশ্মীরে কোনও আইন তৈরি করতে সংসদকে কেউ বাধা দিতে পারে না। রাষ্ট্রপতির ৩৭০ ধারা বাতিলের ক্ষমতা রয়েছে। কাজেই কোনও নিয়ম ভাঙা হয়নি। আমরা কাশ্মীরের জন্য মরতেও পারি। সংবিধানে জম্মু ও কাশ্মীরকে দেশের অবিচ্ছেদ্য অংশ। পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরও ভারতের অন্তর্গত। জম্মু ও কাশ্মীরে কোনও আইন তৈরি করতে সংসদকে কেউ বাধা দিতে পারে না। রাষ্ট্রপতির ৩৭০ ধারা বাতিলের ক্ষমতা রয়েছে। কাজেই কোনও নিয়ম ভাঙা হয়নি।

জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল নিয়ে মঙ্গলবার সকালে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠকে অমিত শাহ, রাজনাথ সিং, নীতিন গডকড়ি, জেপি নাড্ডা ও প্রহ্লাদ যোশির মতো নেতারা ছিলেন। ৩৭০ ধারা বাতিলের পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। এ দিকে, ভূস্বর্গে শান্তি অটুট রয়েছে বলে জানানো হয়েছে নিরাপত্তা রিপোর্টে।