১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৪:৫১

কলাপাড়া টু ঢাকা লঞ্চ সার্ভিস চালু

উত্তম কুমার হাওলাদার, কলাপাড়া প্রতিনিধি :০৬ সেপ্টেম্বর।। এক যুগ পর ফের পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নৌ-রুটে ঢাকাগামী লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১২টায় আনুষ্ঠনিকভাবে দোয়া ও মিলাদের মধ্যেদিয়ে প্রায় দুই শতাধিক যাত্রি নিয়ে বিলাশবহুল রয়েল ক্রুজ-২ নামের দেতালা লঞ্চটি ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে। এ সময় লঞ্চটি এক নজর দেখতে লঞ্চঘাটে ভীড় জমিয়েছে কয়েকশ উৎসুক জনতা।

এ নৌ-রুটে লঞ্চ সার্ভিস চালু হওয়ার ফলে কুয়াকাটার সাথে এক নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। এছাড়া স্থানীয় ব্যবসায়িদের ঢাকার মোকাম থেকে মালামাল বহনে সহজ উপায় হয়েছে বেলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

লঞ্চ ঘাট সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন ঢাকা থেকে সন্ধ্যা ৬ টায় ছেড়ে আসবে। আবার দুপুর ১২ টায় কলাপাড়া লঞ্চ ঘাটে থেকে ঢাকার উদ্যেশে ছেড়ে যাবে। পথে বালিয়াতলী, পায়রা বন্দর  ও রাঙ্গাবালীর কোরালিয়া, ফেলাবুনিয়া আর গলাচিপায় ঘাট দিবে। এ নৌ-রুটে দুইটি বিলাশ বহুল লঞ্চ থাকবে বলে ঘাট কর্তৃপক্ষ জানান।

লঞ্চটির প্রথম শ্রেনীর মাষ্টার মো. তাহাজ্জুদ শেখ জানান, সাউথ বাংলা শিপিং লাইনস লিঃ এম ভি রয়েল ক্রুজ-২ বিলাসবহুল লঞ্চে ৮টি ভিআইপি কেবিন,৭টি ফ্যামিলি কেবিন, ৪৯টি ডাবল কেবিন, ৩৩ সিঙ্গেল শিতাতপ নিয়ন্ত্রীত কেবিন রয়েছে। প্রতিটি ভিআইপি কেবিন ৬ হাজার টাকা, ফ্যামিলি কেবিন ৩ হাজার টাকা, ডাবল কেবিন ২ হাজার চার শত টাকা ও সিঙ্গেল কেবিন এক হাজার দুই শত টাকা ভাড়া নির্ধারণ হরা হয়েছে। এছাড়া কলাপাড়া টু ঢাকা ডেক টিকিট জন প্রতি চার শত টাকা বলে তিনি জানিয়েছেন।

কলাপাড়া ব্যবসায়ি সমিতির অর্থ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন বিপু জানান, আবারও লঞ্চ যোগে ঢাকায় যাতায়াত করা যাবে,এটা কলাপাড়ার মানুষের জন্য সত্যিকারার্থেই আনন্দের সংবাদ।

ব্যবসায়ী ইউনুস মৃধা জানান, অনেক দিন কলাপাড়া-ঢাকা লঞ্চ সার্ভিস বন্ধ ছিল। আমাদের জাহাজের মাধ্যমে মালামাল পরিবহন করতে হতো। জাহাজে মাল দিলে তিন থেকে চর দিন সময় লাগতো। এ লঞ্চ সার্ভিস চালু হওয়ার ফলে আমরা প্রতিদিনের মাল প্রতিদিনই পাবো।

পর্যটক সোহাগ রহমান জানান, তিনদিন কুয়াকাটায় থাকার পর আজ কলাপাড়া লঞ্চ ঘাট থেকে স্ব-পরিবার নিয়ে লঞ্চের ঢাকায় যাচ্ছি। এ লঞ্চ সার্ভিস চালু থাকলে পর্যটকরা খুব সহজেই কুয়াকাটায় আসতে পারবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

ঘাট ইজারাদার তানভীর মুন্সি জানান, দীর্ঘদিন এ রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ ছিলো। অনেক  চেষ্টার পর লঞ্চ সার্ভিস চালু করা সম্ভব হয়েছে। সকলের সহযোগিতা পেলে লঞ্চ সার্ভিসটি চালু থাকবে। আর এ লঞ্চ সার্ভিসে ফলে পর্যটকরা নির্বিঘেœ কুয়াকাটায় আসতে পারবে।

পটুয়াখালী বিআইডব্লিটি’র সহকারী পরিচালক খাজা সাদিকুর রহমান জানান, এ রুটে লঞ্চ সার্ভিস চালু হওয়ার ফলে মানুষের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ করা গছে। পর্যাপ্ত যাত্রী চলাচল করলে এ সার্ভিসটি চালু থাকবে।

উল্লেখ্য প্রায় ১২ বছর আগে এ রুটে লঞ্চ সার্ভিস চালু ছিল। এক সময় এ এলাকার মানুষের ঢাকায় যাতায়াতের সহজ মাধ্যম ছিল লঞ্চ সার্ভিস। কিন্তু কোন এক অদৃশ্য কারনে এ নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে দুভোর্গে পরে কলাপাড়াসহ রাঙ্গাবালী এলাকার মানুষ ও ব্যবসায়ীরা।