১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৫:০৯

গাজীপুরে ‘রাধুনী’ রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণে আহত ১৭, তদন্ত কমিটি গঠন

গাজীপুর মহানগরীর ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বোর্ডবাজার এলাকায় ‘রাধুনী’ নামক একটি রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে ওই রেস্তোরার ভবন ধসে কমপক্ষে ১৭ জন আহত হয়েছে। বিস্ফোরণে পাশের দুটি ভবনও  ধসে গেছে।

শনিবার দিনগত রাত ১টা ৪০ মিনিটের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ১৮ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বোর্ডবাজার এলাকায় ৩তলা ভবনে রাধুনী হোটেলে বিকট শব্দে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় রাধুনী হোটেলের ভবনের নীচ তলা ও দ্বিতীয় তলা বিস্ফোরণে ধসে যায় এবং পাশের দুটি ৪তলা ভবনের নিচ তলা আংশিক ধসে পড়ে। এতে কমপক্ষে ১৮জন আহত হয়। এসময় স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে তায়রুন্নেসা মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যায়। সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ১৭ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে। বিস্ফোরণে হোটেল চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে গেছে। এছাড়া পাশে তৃপ্ত হোটেল ও আইএফআই ব্যাংক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছানোর আগে স্থানীরা আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতাল নিয়ে যায়। তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ২জনকে উদ্ধার করে। আহতদের মধ্যে ওই খাবার হোটেলের কর্মীরাও আছে।

তিনি আরো জানান, রাধুনী হোটেল থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তবে হোটেলটিতে তিতাসের গ্যাস লাইন ও সিলিন্ডারও ছিলো। তদন্তের পর বিষয়টি পরিস্কারভাবে বলা যাবে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানান, বিস্ফোরণের ঘটনায় ১৮জনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। এদের মধ্যে ৩জনকে বার্ন ইউটে র্ভ করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। অন্যদের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, গভীর রাতে হঠাৎ প্রচণ্ড বিস্ফোরণে পুরো এলাকা কেঁপে ওঠে। বিস্ফোরণের উৎপত্তিস্থল ছিল বাংলার রাঁধুনী হোটেল। গ্যাস থেকেই বিস্ফোরণ বলে ধারণা তাদের।

মেট্রোপলিটন গাছা থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, পাশাপাশি তিন ও চার তলা দুটি ভবনের নিচতলায় ওই দুই খাবার হোটেল। দুই হোটেলের মাঝ বরাবর স্যুয়ারেজ লাইন গেছে। ওই লাইন ছিল ঢাকনা দেয়া। হতে পারে ময়লা আটকে গিয়ে সেখানে গ্যাস জমে গিয়েছিল। এর আগেও কিছুটা দূরে এই স্যুয়ারেজ লাইনেই বিস্ফোরণ হয়েছিল গত রোজায়।

বিকট ওই বিস্ফোরণের পর খাবার হোটেল থেকে ছিটকে যাওয়া ইটের টুকরোর আঘাতে মহাসড়কের উল্টো পাশের বোর্ডবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পাঁচতলার কাঁচ ভেঙে যায়।

গাজীপুর ফায়ার স্টেশনের সিনিয়ার স্টেশন অফিসার মো. জাকারিয়া খান বলেন, হোটেলে বিস্ফোরণ আর আগুনের খবর পেয়ে আমরা গিয়েছিলাম। বিস্ফোরণে হোটেলের দেয়াল ধসে পড়েছে, পলেস্তরা খসে পড়েছে। তবে আগুন ছড়ায়নি।

বাংলার রাঁধুনী হোটেলের ম্যানেজার সুমন (২৬) নিজেও এ ঘটনায় আহত হয়েছেন।

সুমন ছাড়াও আল আমীন (৩২), আরিফুল (১৮), জুবায়ের (১৬), নাজমুল (২২), জাহিদ (২৫), আলমগীর (২৭), মারুফ (১৩), মাসুদ (১৮), সুফিয়ান (২২), জাহাঙ্গীর (২০), শুকুর (১৯), রাশেদ (২২), তুহিন (২২) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন বলে মেডিকেল ফাঁড়ি পুলিশের পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানিয়েছেন।

এ ঘটনায় ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম। অতিরিক্ত জেলা মেজিস্ট্রেট মো. শাহিনুর ইসলামকে প্রধান করে গঠিত এই কমিটিতে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।