২৭শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১১:০৯
শিরোনাম:

শরণখোলায় তিনটি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নইন আবু নাঈম, শরনখোলা (বাগেরহাট)ঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাগেরহাটের
শরণখোলার তিনটিসহ উপকূলীয় ১৭টি উপজেলার মোট ১০০টি বহুমূখী ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন। আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রসমন দিবসের এই দিনে রবিবার সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে আশ্রয়কেন্দ্রগুলো উপকূলবাসীকে উপহার দেন প্রধানমন্ত্রী।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্ত, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের বাস্তবায়নে একেকটি আশ্রয়কেন্দ্র নির্মানে দুই কোটি আট লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। বহুমূখী এ আশ্রয়কেন্দ্রগুলো প্রতিবন্ধীবান্ধব। এছাড়াও উন্নত স্যানিটেশন, বৃষ্টির পানি সংরক্ষণসহ সোলার ও বিদ্যুৎ সুবিধা রয়েছে এতে। শরণখোলায় নির্মিত আশ্রয়কেন্দ্র তিনটি হচ্ছে, উপজেলা সদরের শরণখোলা মহিলা দাখিল মাদরাসা বহুমূখী আশ্রয়কেন্দ্র, জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় বহুমূখী আশ্রকেন্দ্র ও রাজাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় বহুমূখী আশ্রয়কেন্দ্র।

এর মধ্যে উপজেলা সদরের মহিলা দাখিল মাদরাসায় নির্মিত আশ্রকেন্দ্রে উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষনা শেষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকন ফিতা কেটে
আশ্রয়কেন্দ্রের নামফলক উন্মোচন করেন। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরদার মোস্তফা শাহিনের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা এস কে আব্দুল্লাহ আল সাইদ, কৃষি কর্মকর্তা সৌমিত্র সরকার, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নূরুজ্জামান খান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রনজিৎ সরকার, ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন, রায়েন্দা-রাজৈর ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ আ. জলিল আনোয়ারী, আশ্রয়কেন্দ্র নির্মানের ঠিকাদার গোলাম মোস্তফা মধু।

এছাড়া অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী, জনপ্রতিনিধি,শিক্ষক-ছাত্রছাত্রী, সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, সিপিপি, রেডক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছ্বাসেবী সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত
ছিলেন। এর আগে সকাল ৯টায় আন্তর্জাকি দুর্যোগ প্রসমন বিদসের এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে শুরু বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে ‘নিয়ম মেনে অবকাঠামো গড়ি, জীবন ও
সম্পদের ঝুঁকি হ্রাস করি’ পতিপাদ্যের আলোকে পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।