১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ২:২৯
শিরোনাম:

নির্বাচনের বছরে পর্যটন ব্যবসা মন্দা গেলেও এবছর ঘুরে দাঁড়াবে

বাংলাদেশের অপার সম্ভাবনাময় খাত ‘পর্যটন শিল্প’। দিন দিন পর্যটন খাত উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। গত কয়েকবছরে চোখে পরার মতো বেশ কিছু উন্নয়নও হয়েছে এই খাতে। শিল্পের উন্নয়নে সরকারের পক্ষ থেকেও বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

গেলো কয়েকবছরে পর্যটন খাতে দেশী-বিদেশী ট্যুরিস্টের সংখ্যা বেড়েছে বলে জনিয়েছে পর্যটন করপোরেশন। বিভিন্ন ট্যুরিস্ট স্পটকে কেন্দ্র করে হোটেল, মোটেলসহ সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা গড়ে ওঠায় এই সংখ্যা বেড়েছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। বলেন, সামগ্রীক উন্নয়নের কারণেই পর্যটন স্পটগুলো ঘুরতে আসছেন ভ্রমণ পিপাসুরা।

গত বছর নির্বাচন থাকার কারণে দেশের পর্যটন খাতে বেশ বিরুপ প্রভাব পরেছিলো বলে জানান ট্যুরিজম ডেভেলপার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (টিডাব) চেয়ারম্যান জামিল আহমেদ। বলেন, এবছর হয়তো সেখান থেকে উঠে আসবে ট্যুরিজম কেন্দ্রীক ব্যবসা। এবার হয়তো ভালো ব্যবসা হতেও পারে!!

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের জনসংযোগ বিভাগের ব্যবস্থাপক জিয়াউল হক বলেন, যে পরমিাণ উন্নয়ন হয়েছে পর্যটন শিল্প কেন্দ্রীক তাতে ট্যুরিস্ট এবছর বাড়বে। দেশের ভেতরের ট্যুরিস্টের পাশাপাশি বিদেশী ট্যুরিস্টরা এবছর অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশি আসবে বলে মনে করেন তিনি।

টিডাবের চেয়ারম্যান জামিল আহমেদ অভিযোগ করেন, যেভাবে উন্নয়নের কথা বলা হয় সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে, সেভাবে উন্নয়ন হয়নি। কর্মকর্তাদের দক্ষতার অভাবে এমনটা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। তাই পর্যটন শিল্পের অবস্থা দিনকে দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে।

তবে এই কথার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের জনসংযোগ বিভাগের ব্যবস্থাপক জিয়াউল হক। বলেন, দেশের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সব দপ্তরের কর্মকর্তারা কাজ করে যাচ্ছে। পর্যটনের বিকাশে বিভিন্ন দেশে মেলায় অংশগ্রহণ করে প্রচারের ব্যবস্থা করে থাকে দপ্তরগুলো।