১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৫:২০
শিরোনাম:

পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জেটিতে ভিড়েছে কয়লা বোঝাই আফ্রিকান পতাকাবাহী জাহাজ

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নির্মানাধীণ ১৩২০ মেগাওয়াট পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জেটিতে ভিড়েছে দ্বিতীয় বারের আরো একটি কয়লাবাহী জাহাজ। প্রায় ২১ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে আফ্রিকান পতাকাবাহী এমভি ওলডেনডরফ নামের জাহাজটি সোমবার বেলা
১১ টায় তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জেটিতে নোঙ্গর করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ সবিচ আহমেদ কায়কাউস, চেয়ারম্যান (পিডিবি) খালেদ মাহমুদ, ম্যানেজিং ডাইরেক্টও (বিসিপিসিএল) খোরশেদ আলম, যুগ্ন সচিব নূর আলম, বিসিপিসিএল’র প্রকল্প পরিচালক গোলাম মাওলাসহ পায়রা বন্দরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, এ জাহাজটি ইন্দোনশিয়ার বালিকপাপান কোল টার্মিনাল থেকে ২০ হাজার ৭২০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ছেড়ে আসে। শুল্কায়নসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া পর এ জাহজ থেকে কচমচ কোম্পানী কয়লা খলাস করবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানান, ২০১৬ সালের ১৩ আগষ্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পায়রা বন্দরের মুরিং পয়েন্টে শীপ টু শীপ লাইটারেজের মাধ্যমে আংশিক অপারেশনাল কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন। এরপর থেকে এ পর্যন্ত মোট ৩৫ টি বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজের অপারেশনাল কার্যক্রম পায়রা বন্দরের মাধ্যমে সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

পায়রা বন্দরের জন্য সরকারি অর্থায়নে প্রথম টার্মিনাল নির্মাণের কার্যক্রম চলছে। বাংলাদেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর পায়রা অত্যন্ত সম্ভাবনাময় একটি বন্দর। অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্প হিসেবে এই বন্দরকে পুর্ণাঙ্গ সুবিধাসহ একটি আধুনিক বন্দর হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার ইতোমধ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর পায়রা দিনে দিনে
ব্যস্ততম বন্দরের রূপ নিবে।

এই বন্দর পুরোপুরি চালু হলে দক্ষিণাঞ্চলসহ সারাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে এমনটাই মনে করছেন তারা। বিসিপিসিএল’র প্রকল্প পরিচালক গোলাম মাওলা জানান, বিসিপিসিএল’র নির্মানাধীন পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের উৎপাদন কাজে এ কয়লা ব্যবহৃত হবে। বিদুৎ কেন্দ্র ডিসেম্বরে উৎপাদনে গেলে ধারাবাহিকভাবে প্রায় প্রতিদিনই কয়লাবাহী জাহাজ আসবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।