১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৩:৪৯
শিরোনাম:

রাহুল দ্রাবিড়ের আশা, সাকিবের শাস্তি পুনর্বিবেচনা করবে আইসিসি

ম্যাচ ফিক্সিং না করেও শাস্তি পেয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। দুই বছর আগে শুধু ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন। তার জন্যই দুই বছরের শাস্তি সেটা মেনে নিতে পারছেন না ক্রিকেট বিশ্লেষকরা। ব্যাপারটা লঘু পাপে গুরু দণ্ড ঠেকছে ভারতের সাবেক অধিনায়ক রাহুল দ্রাবিড়ের কাছে। সাকিবের শাস্তি কমাতে আইসিসি’র প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’।

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়ে তা গোপন করায় বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিবকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ দিয়েছে আইসিসি, যার মধ্যে এক বছরের শাস্তি দোষ স্বীকার করায় স্থগিত থাকবে। মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাকিবের এই শাস্তির ঘোষণা দেয় আইসিসি।

অপরাধ ও শাস্তি দুটোই মেনে নেয়ায় শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করার সুযোগ থাকছে না সাকিবের। ফলে ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত কোনো ধরনের ক্রিকেটে মাঠে নামতে পারবেন না বাংলাদেশের তারকা এই ক্রিকেটার।

এই অপরাধে সাকিবের শাস্তি কিছুটা ‘কঠোর’ হয়ে গেছে বলে মনে করেন দ্রাবিড়। এ ব্যাপারে টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘অবিশ্বাস্য! সাকিবের শাস্তিটা কি কঠিন হয়ে গেল না? সে কি ফিক্সিংয়ে জড়িত ছিলো? আমি মনে করি, তার একটাই ভুল সে আইসিসি ও দুর্নীতি দমন কমিশনকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাবটি জানায়নি। এ জন্য দুই বছরের শাস্তি অনেকটা কঠোর। আমি আশা করি, আইসিসি এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবে।’