১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৩:১১
শিরোনাম:

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতেই ভারত সফরের আগে নিষেধাজ্ঞা চেয়েছেন সাকিব

সাকিবের নিষেধাজ্ঞা নতুন কোনো খবর না। তবে গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খানের একটি বক্তব্য নতুনভাবে ভাবাতে শুরু করেছে ক্রিকেট ভক্তদের। আকরাম খান বলেছিলেন, সাকিবের সিদ্ধান্ত মতোই ভারত সফরের আগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে আইসিসি। এখন ভক্তরা ভাবছেন সাকিব কেন এটা করলেন। তারই উত্তর খুঁজতে গিয়ে জানা গেলো এ কথা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার বললেন, সাকিবকে যেহেতু শাস্তিটা পেতেই হবে তাই ভাবনা-চিন্তা করেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ও (সাকিব)। কেননা ভারতে সিরিজ চলাকালীন নিষেধাজ্ঞা পেলে সিরিজে একটা বিরূপ প্রভাব পড়তো। সেই সঙ্গে বিদেশের মাটিতে দেশের ভাবমূর্তিও নষ্ট হতো। তাই ভারত সফরের আগেই নিষেধাজ্ঞা মেনে নেয়াটা শ্রেয়তর মনে করেছেন সাকিব।

একই ইস্যুতে কথা বললেন বিসিবির পরিচালক সাজ্জাদুল ইসলাম ববি। তার কথাতে সাকিবের সিদ্ধান্ত ঠিকই আছে। কেননা দেশের বাইরে গিয়ে শাস্তির সংবাদ পাওয়াটা দেশের ইমেজে নেতিবাচক কালিমা লাগতে পারতো। তাছাড়া ভারত সফরের পরে যদি শাস্তি মানতো তাহলে আরও বড় ক্ষতি হতো। কেননা ভারত সফর শেষ হতো নভেম্বরের শেষে। তাহলে আগামী বছরের নভেম্বর পর্যন্ত ক্রিকেট থেকে দূরে থাকতে হতো সাকিবকে। যেটা হলে আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে খেলার সুযোগ পুরোটাই বন্ধ হয়ে যেতো। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার জন্যই ভারত সফরের আগে নিষেধাজ্ঞা চেয়েছেছেন সাকিব।

আগামী বছরের ১৮ অক্টোবর থেকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মাঠে গড়াবে। আর সাকিবের শাস্তির মেয়াদ শেষ হবে ২৯ তারিখে। এখন আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী কর্মকান্ডে ঠিকঠাকভাবে অংশ নিতে পারলে বিশ^কাপের প্রথম ম্যাচ থেকেই ২২ গজে দেখা মিলতে পারে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারের।