১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৯:০৯

ধানমন্ডিতে বাড়ির মালিক ও গৃহকর্মীকে গলা কেটে হত্যা

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। ধানমন্ডির ২৮ নম্বর (নতুন ১৫) রোডের ২১ নম্বর বাড়ির ‘লবেলিয়া’অ্যাপার্টমেন্টের চতুর্থ তলার ফ্ল্যাট থেকে লাশ দুইটি উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতরা হলেন আফরোজা বেগম (৬৫) ও দিতি (১৯)। এদের মধ্যে আফরোজা বেগম শিল্পপতি মনির উদ্দিন তারিমের শাশুড়ি। ওই ফ্ল্যাটে আফরোজা বেগম গৃহকর্মীকে নিয়ে থাকতেন। অ্যাপার্টমেন্টের পঞ্চম তলায় মনির উদ্দিন তারিম সপরিবারে থাকেন। একজন নতুন গৃহকর্মী ওই বাসায় শুক্রবার যোগ দেন। ঘটনার পর থেকে ওই গৃহকর্মী পলাতক রয়েছেন।

পুলিশের ধানমন্ডি জোনের এডিসি আব্দুল্লাহ হিল কাফি বলেন, বেগমের স্বামী মৃত। তিনি ব্যবসায়ী ছিলেন। ওই ফ্ল্যাটে আফরোজা বেগম গৃহকর্মী দিতি ও কেয়ারটেকার বাচ্চুকে নিয়ে থাকতেন। ঘটনার পর বাচ্চুকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বাচ্চ পুলিশ জানিয়েছে, একজন নতুন গৃহকর্মী শুক্রবার ওই বাসায় যোগ দিয়েছিলেন। সন্ধ্যার পর সাড়ে ৭ টার দিকে সে ফ্ল্যাটে ঢুকে দেখেন যে বেডরুমের মেঝেতে দু’জনের গলাকাটা লাশ পড়ে আছে।

আব্দুল্লাহ হিল কাফী আরও বলেন, ওই অ্যাপার্টমেন্টের বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। অ্যাপার্টমেন্টের সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ জব্দ করা হয়েছে। অ্যাপার্টমেন্টের চতুর্থ তলা থেকে লিফট দিয়ে নামার পথে স্থানে স্থানে রক্তের দাগ দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে ঘাতক পালিয়ে যাওয়ার সময় তার শরীরের লেগে থাকা রক্ত থেকে ওই দাগের সৃষ্টি হয়েছে। তবে কে বা কারা তাদের জবাই করে হত্যা করেছে সেটি জানা যায়নি

ধানমন্ডি থানার ওসি আব্দুল লতিফ বলেন, ফ্ল্যাটের বেডরুমের মেঝেতে ঘাতকরা দুই জনকে জবাই করে হত্যা করেছে। বেডরুমের মেঝে জুড়ে রক্তে ভেসে গেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত লাশ দুটির সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জান্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছিলো।