২৭শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১১:০৬
শিরোনাম:

মুশফিকের লড়াইয়েও ইনিংস ব্যবধানে হার এড়াতে পারলো না বাংলাদেশ

ইন্দোর টেস্টে তৃতীয় দিন ব্যাটিংয়ে না নেমে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ইনিংস ঘোষণা করেছে স্বাগতিক দল ভারত। ৩৪৩ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং ব্যর্থতায় ১৩০ রানের ইনিংস ব্যবধানে হারলো মুমিনুলরা।

তৃতীয় দিনের শুরুতে প্রথম সেশনেই ৪৪ রান তুলতে টপ অর্ডারের ৪ উইকেট হারায় টাইগাররা। এই ইনিংসেও ব্যাটিং ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও সাদমান ইমলাম। দলীয় মাত্র ১০ রানে উমেস যাদবের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন ইমরুল (৬)। এর ৬ রান পরেই প্যাভিলীয়নের পথ ধরেন সাদমান (৬)। ইশান্ত শর্মার বলে তিনিও বোল্ড হন।

এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে মোহাম্মদ মিঠুনের ২১ রানে জুটি গড়ে দলকে আরো বিপদে ফেলে চলে যান অধিনায়ক মুমিনুল হক (৭)। মোহাম্মদ সামির বলে এলবির ফাঁদে পড়েন তিনি। প্রথমে ফিল্ড আম্পায়ার না দিলেও রিভিউ নিয়ে মুমিনুলকে ফেরায় বিরাট কোহলিরা। দেখেশূনে খেলা মিঠুনও সামির স্বীকার হয়ে সাঁজ ঘরের পথ ধরেন। ১৮ রান করে মায়াঙ্ক আগারওয়ালের হাতে বন্দী হন তিনি।

পঞ্চম উইকেটে জুটিতে দেখে শুনে ভারতী পেসারদের মোকাবেলা করে যাচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু লাঞ্চ বিরতির পর ব্যাটিংয়ে নেমে সামির বলে স্লিপে রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ প্যাভিলীয়নের পথ ধরেন মাহমুদউল্লাহ। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ঝড়ো ইনিংস খেলেন লিটন। কিন্তু তিনিও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৩৫ রান করে তিনিও ফেরেন।

সপ্তম উইকেট জুটিতে মুশফিককে সঙ্গ দিতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করেন মেহেদি হাসান মিরাজ। দুই জনে ৫৯ রানের জুটি গড়েন। কিন্তু যাদবে বলে বোল্ড হয়ে দলকে বিপদে ফেলে যান তিনি। যাওয়ার আগে ৩৮ রান করেন।

ব্যাটসম্যানদের আশা যাওয়ার মিছিলে একপ্রান্তে দাঁড়িয়ে থেকে একাই লড়ে গেলেন মুশফিক। তুলে নিলেন অর্ধশত। কিন্তু রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বল উড়ে মারতে গিয়ে ৬৪ রানে কাটা পড়েন তিনি। শেষ দিকে ট্যাল্ডার ব্যাটসম্যানরা কিছুই করতে পারেনি। ফলে ইনিংস ব্যবধানে পরাজয় বরণ করে বাংলাদেশ। ভারতের হয়ে সামি ৪টি ও অশ্বিন ৩টি উইকেট নেন।

এর আগে প্রথম ইনিংসে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১৫০ রান করে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। জবাবে ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ২৪৩ রানের ইনিংসের সুবাদে দ্বিতীয় দিন শেষে ৬ উইকেটে ৪৯৩ রান করে ভারত। ৩৪৩ রানের বিশাল লিড নিয়ে ইসিংস ঘোষণা করে স্বাগতিকরা।