১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৩:২২
শিরোনাম:

দুবলার শুঁটকি পল্লী থেকে উদ্ধার ১০ শ্রমিককে শরণখোলা থানায় হস্তান্তর

নইন আবু নাঈম,প্রতিনিধি শরনখোলা ঃ পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দুবলার চরের শুঁটকি পল্লী থেকে উদ্ধার করা
সাত শিশুসহ ১০মৎস্য শ্রমিককে শনিবার রাত ৮টার দিকে শরণখোলা থানায় হস্তান্তর করেছে কোস্টগার্ড। এসময় ওই শিশুদের অপহরণের অভিযোগে আটক মো. নূরুল হক ওরফে লেদু মিয়াকেও (৩৬) থানায় হস্তান্তর করা হয়। এঘটনায়
কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের ওয়ারেন্ট অফিসার মো. মমিন বাদি হয়ে শরণখোলা থানায় শিশুশ্রম আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবার রাত ১২টার দিকে মাঝেরকিল্লা শুঁটকি পল্লীতে অভিযান চালিয়ে ওই শ্রকিদের উদ্ধার করে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের দুবলার আউটপোস্ট টহল দল। অপহরণকারী লেদু মিয়া চট্রগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার মৃত ফরিদ মিয়ার
ছেলে। উদ্ধার হওয়া মৎস্য শ্রমিকরা হল কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিদপুর থানার সাগর ফেনা গ্রামের মৃত নুরউদ্দিন মিয়ার ছেলে রেণু মিয়া (৪২), চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ থানার বালিয়া গ্রামের মৃত আক্কাস আলীর ছেলে মানিক হোসেন (৪৯), ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও থানার মোল্লাপাড়া গ্রামের কিতাব আলীর ছেলে মো. হৃদয় (২৮), কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর থানার হালিমা গ্রামের মোতালেবের ছেলে টুটুল মিয়া (১৭), হবিগঞ্জ জেলার মংলাবাজার থানার শিববাড়ি গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে আক্তার হোসেন (১৩), নোয়াখালী জেলার সেনবাড় থানার জালুজসিম মিয়ার ছেলে আল আমিন (১৮), চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার চিটাগাও গ্রামের আ. খালেকের ছেলে আমির হোসেন (১৭), ময়মনসিংহ জেলার তারাকন্দ থানার বেড়–য়া
গ্রামের মোখলেছের ছেলে মো. রিমন মিয়া (১৭), নোয়াখালী জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার লতিফপুর গ্রামের আ. মালেকের ছেলে মো. আরিফ (১৬) ও কুষ্টিয়া সদর থানার শেখপাড়া গ্রামের কচির উদ্দিনের ছেলে মো. পারভেজ (১৭)।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল্লাহ আল সাইদ জানান, প্রতারণার মাধ্যমে এনে শিশুদের শিশুদের দিয়ে শ্রমিকের কাজ করানোর দায়ে শিশুশ্রম আইনে নূরুল হক ওরফে লেদু মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা কেরেছে কোস্টগার্ড। রবিবার সকালে তাকে বাগেরহাট আদালতে পাঠানো হবে। এছাড়া শ্রমিকদের পরিবারে লোকজন পাওয়া গেলে থানা থেকেই
হস্তান্তর করা হবে। অন্যথায় তাদের আালতের মাধ্যমে সেফ কাস্টুডিতে পাঠানো হবে।