১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৪:১১
শিরোনাম:

ইনিংস ব্যবধানে হারল বাংলাদেশ

ইডেন টেস্টে ভারতীয় বোর্ডের আয়োজন যতোটা জমকালো ছিল, বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং ছিল ততোটাই ফিঁকে। ইন্দোর টেস্টের পরই আন্দাজ করা যাচ্ছিলো ইডেন গার্ডেন্সেও ভারতের মোকাবেলা করতে সক্ষম নয় বাংলাদেশ। ইডেন টেস্ট নিয়ে মাসব্যাপি আয়োজনের মূল্যায়ন করতে পারল না বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। পুরো এক ইনিংস ও ৪৬ রানে ঐতিহাসিক এই টেস্টে পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ নিয়েছে টাইগাররা।

জয় কিংবা ড্র নয়, বাংলাদেশের সামনে ইনিংস হার এড়ানোটাই বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। তবে সেই লক্ষ্যে সক্ষমতা দেখাতে পারলেন না টাইগার ব্যাটসম্যানরা। তৃতীয় দিনে ম্যাচের এক ঘন্টা না গড়াতেই অলআউট হলেন তারা।

দেশের মাটিতে বিরাটরা যে কতো আগ্রাসী তা এই সিরিজের আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট দেখেই আঁচ করা যাচ্ছিলো। তবুও অনেকেই আশা করছিলো বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ভালো একটা লড়াই হবে। কিন্তু লড়াই ত দূরের কথা ভারতীয় বোলারদের সামনে দাঁড়াতেই পারছিল না টাইগার ব্যাটসম্যানরা। ২-০ ব্যবধানে লজ্জাজনকভাবে সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ।

তৃতীয় দিন অবধি আশার প্রদীপ জিয়িয়ে রেখেছিলেন মুশফিকুর রহিম। শেষ পর্যন্ত তিনিও পারলেন না বেশিদূর আগাতে। ব্যক্তিগত ৭৪ রানের মাথায় উমেশ যাদবের বলে ছক্কা হাঁকাতে আকাশচুম্বী শট খেলেন তিনি। কিন্তু বল মাটি ছোঁয়ার আগেই জাদেজা তা মুষ্ঠিবদ্ধ করে নেন। মুশফিকের উইকেটই নিশ্চিত করেছিল বাংলাদেশের হার।

দ্বিতীয় দিনের ৬ উইকেটে ১৫২ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেন টাইগাররা। মুশফিক ৫৯ ও এবাদত ০ রান নিয়ে নতুন দিনের খেলা শুরু করেন। তবে শুরুটা শুভ হয়নি। শুরুতেই উমেশের শিকার হয়ে ফেরেন এবাদত। রানের খাতাই খুলতে পারেননি তিনি। তৃতীয় দিন সকালে বাংলাদেশ খেলতে পেরেছে মাত্র ৮.৪ ওভার তথা আধঘণ্টার কিছু বেশি সময়। মুশফিকের ৭৪ ছাড়াও ৫ চারের মারে ২১ রান করে পরাজয়ের ব্যবধানটাই কমিয়েছেন আলআমিন হোসেন।

ভারতের পক্ষে বল হাতে ৫ উইকেট নিয়েছেন উমেশ যাদব। টেস্ট ক্যারিয়ারে তার দ্বিতীয় ফাইফার এটি। এছাড়া বাকি ৪ উইকেট নিয়েছেন ইশান্ত শর্মা।

এ জয়ের ফলে দুই ম্যাচের সিরিজে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করল ভারত। দুই ম্যাচে তারা জিতেছে ইনিংস ব্যবধানে। এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজেও দুই ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানে জিতেছিল তারা। টেস্ট ইতিহাসে টানা চার ম্যাচে ইনিষ ব্যবধানে জেতা একমাত্র দল এখন ভারত।

প্রথম ইনিংসে ১০৬ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। এরপর ৩৪৭ করে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। স্বাগতিকদের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৩৬ রান করেন দলনেতা বিরাট কোহলি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৫ রান আসে পুজারার ব্যাট থেকে। বাংলাদেশের পক্ষে তিনটি করে উইকেট শিকার করেন আল আমিন হোসেন ও এবাদত হোসেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৩০.৩ ওভারে ১০৬

ভারত ১ম ইনিংস: ৮৯.৪ ওভারে ৩৪৭/৯ (ডি.) (মায়াঙ্ক ১৪, রোহিত ২১, পুজারা ৫৫, কোহলি ১৩৬, রাহানে ৫১, জদেজা ১২, ঋদ্ধিমান ১৭*, অশ্বিন ৯, উমেশ ০, ইশান্ত ০, শামি ১০*; আল আমিন ২২.৪-৩-৮৫-৩, আবু জায়েদ ২১-৬-৭৭-২, এবাদত ২১-৩-৯১-৩, তাইজুল ২৫-২-৮০-১)

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ৪১.১ ওভারে ১৯৫।