১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৪:১৫
শিরোনাম:

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি এবং নতুন মামলা দিয়ে বাণিজ্য হচ্ছে বলে অভিযোগ বিএনপি স্থায়ী কমিটির

কমিশনে নিয়োগ নিয়ে বিভক্ত নির্বাচন কমিশন, কমিশনের দুর্নীতি তদন্তের দাবি, বিদেশে নারী কর্মী নির্যাতনের কমিশন গঠন, রোহিঙ্গা সংকট, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি এবং নতুন করে মামলা দিয়ে বাণিজ্য করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটি। এছাড়া, বৈঠকে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি ও মামলার বিষয়ে পর্যালোচনা করা হয়।

শনিবার (৩০ নভেম্বর) রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সমস্ত বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

বৈঠক শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনে নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে নির্বাচন কমিশন বিভক্ত। প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং সচিব এককভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে তারা লোক নিয়োগ দিচ্ছেন এবং বিভিন্ন কাজ করছেন যেটা সংবিধানের পরিপন্থি। কারণ, এখানে কমিশনের সবাই মিলে একক সিদ্ধান্ত নিতে হয়। সেটা তারা করতে ব্যর্থ হয়েছেন। এই নির্বাচন অযোগ্য। এখন যেটা মনে হচ্ছে যে, নির্বাচন কমিশনেও দুর্নীতির তদন্ত হওয়া দরকার।

বিদেশে নারী কর্মীদের নির্যাতনে কমিশন গঠনের দাবি জানানো হয়েছে বৈঠকে। এ বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, বিদেশে আমাদের শ্রমিকরা বিশেষ করে আমাদের নারী শ্রমিকরা কাজ করতে যাচ্ছেন তাদের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করা হচ্ছে, তাদেরকে ওপর শারীরিক ও মাননিক নির্যাতন এবং অনেক সময়ে শ্লালিনতাহানি করা হচ্ছে, তাদেরকে ক্ষেত্র বিশেষে হত্যা পর্যন্ত করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে সরকার যে ভূমিকা পালন করা দরকার, সেই ভূমিকার পালন করতে পারছেন না এবং জোরালো কোনো ভূমিকা নিতে পারছেন না। আমরা মনে করি এটা চরম ব্যর্থতা।

ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত সকল চুক্তি প্রকাশের দাবি জানিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ভারতের সঙ্গে যেসব চুক্তি হয়েছে সে সম্পর্কে জানতে চেয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছিলাম। আমরা প্রায় ৭ দিনের অতিরিক্ত সময়ে অপেক্ষা করেছি কিন্তু প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে কোনো রেসপনস পাই নাই।

সেই কারণে আমাদের পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা এখন তথ্য অধিকার আইনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এই চুক্তিগুলো সম্পর্কে ধারনার জন্য চিঠি দেবো। আগামী ২/১ দিনের মধ্যে চিঠি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, দ্রব্যমূল্য পরিস্থিতি নিয়ে আগামী ৩ ডিসেম্বর ও ভারতের নাগরিকপুঞ্জির ফলে পুশব্যাক সম্পর্কে আগামী ৭ নভেম্বর বিএনপি সংবাদ সম্মেলন করবে। এছাড়া, সারাদেশে দুর্নীতির ব্যাপকতায় নিয়ে শিগগিরই একটি সেমিনার করার হবে বলে জানান মির্জা ফখরুল।