১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৩:০৭
শিরোনাম:

প্রধান বিচারপতির প্রস্তাবটি আমার খুব ভালো লেগেছে: প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু আইন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় প্রধান বিচারপতি দেওয়া প্রস্তাব ভালো লেগেছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় আইনমন্ত্রীকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

শনিবার (০৭ ডিসেম্বর) জাতীয় বিচার বিভাগীয় সম্মেলন-২০১৯ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

এর আগে সুপ্রিম কোর্টে বিচার বিভাগীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, দেশে বঙ্গবন্ধু আইন বিশ্ববিদ্যালয় হওয়া প্রয়োজন। সেটা হবে একটি বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়। এ ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় হলে সেখান থেকে দক্ষ বিচারক পাওয়া যাবে। এ ধরণের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব তুলে ধরেন তিনি। পরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রধান বিচারপতির প্রস্তাবটি আমার খুব ভালো লেগেছে। এটা একটা নতুন প্রস্তাব। অনেক বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে, এটা হবে না কেন?

প্রধান বিচারপতির দেয়া সেই প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে আইনমন্ত্রীকে এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে যা যা করণীয় তা করে ফেলেন। আমি বঙ্গবন্ধু আইন বিশ্ববিদ্যালয় করে দেব।

শেখ হাসিনা বলেন, একটি রাষ্ট্র পরিচালনায় আইন, বিচার ও নির্বাহী বিভাগের মধ্যে সমন্বয় থাকতে হয়। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর সকল নাগরিক যাতে আইগত সহায়তা পায় সেজন্য জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা- ন্যাশনাল লিগাল এইড সার্ভিসেস প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। বিশেষ করে দরিদ্র ও নারীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার।

এছাড়াও সম্মেলনে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলায়ও রায় লেখার বিষয়টি বিবেচনায় রাখার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আনিসুল হক ও মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম সরোয়ার বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার জনারেল মোহাম্মদ আলী আকবর।

সম্মেলনে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ, হাইকোর্টের বিচারপতি এবং সারাদেশ থেকে আগত বিচারকগণ উপস্থিত ছিলেন।