৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ৯:৩৭

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে থ্রি-জি সেবা

আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশে তৃতীয় প্রজন্মের টেলিকম সেবা থ্রি-জি আর থাকছে না। শুধু টু-জি এবং ফোর-জি সেবা সচল থাকবে। রোববার (৬ নভেম্বর) ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার আরটিভি নিউজকে বলেন, থ্রি-জি সেবার এখন আর কোনো প্রয়োজনীয়তা নাই। এটিকে ইতোমধ্যে ফোর-জি দিয়ে রিপ্লেস করা হয়েছে। তবে মিনিমাম নেটওয়ার্ক হিসেবে টু-জি সেবার দরকার রয়েছে। তাই আমাদের টু-জি এবং ফোর-জি সেবা থাকবে। থ্রি-জি সেট (মোবাইল ফোন বা ডিভাইস) আর আসবে না এবং তৈরিও হবে না।

এর ফলে যাদের ফোনে সর্বোচ্চ থ্রি-জি রয়েছে তারা শুধু টু-জি সেবা পাবে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, একটি অপ্রচলিত প্রযুক্তি (থ্রি-জি) আমরা ব্যবহার করব কেন। বরং থ্রি-জির যেই সুযোগটা আছে, সেটা ফোর-জিতে ব্যবহৃত হবে।

এর আগে, ২০১৩ সালে দেশে থ্রি-জি সেবা চালু হয়। এর মাধ্যমে মোবাইল ফোনে টিভি দেখা এবং ভিডিও কলে কথা বলাসহ দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা পেতে শুরু করেন গ্রাহকরা। পরবর্তীতে ২০১৮ সালে ফোর-জি এসে নেটওয়ার্ক ও মোবাইল ইন্টারনেটের ধারণাই পাল্টে দেয়। এখন ফোর-জির দাপটে বন্ধ হতে চলেছে থ্রি-জি সেবা। এদিকে বর্তমানে দেশে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভ-জি সেবা চলছে। দ্রুত এই সেবা সর্বোত্র পৌঁছে দেয়ার বিষয়ে কাজ করছে সরকার।