৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১০:০৮

স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা তানু হত্যা: নেপথ্যে আধিপত্য বিস্তার-মাদক ব্যবসা

বাগেরহাট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম তানু ভুঁইয়া হত্যার মূল ঘাতক ফরিদসহ (২৯) নয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১২ নভেম্বর) রাতে পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানি উপজেলার বালিপাড়া গ্রামের একটি বাড়ি থেকে এদের আটক করা হয়।

আটকদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন ও এক রাউন্ড তাজা গুলি জব্দ করেছে পুলিশ। স্থানীয় আধিপত্য বিস্তার ও মাদক ব্যবসা কেন্দ্রীক দ্বন্দ্বের কারণে তানুকে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন গ্রেফতারকৃতরা।

রোববার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক এসব তথ্য জানান।
এদিকে শনিবার রাতে নিহত নূরে আলম তানুর স্ত্রী কানিজ ফাতেমা বাদী হয়ে ১৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৭-৮জনকে আসামি করে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- এজাহারনামীয় আসামি বাগেরহাট শহরের পূর্ববাসাবাটি এলাকার ফরিদ শেখ (২৯), মনির মিস্ত্রি (২৬), রাতুল (২৭), সিরাজুল (২৭), আল আমিন (৩০), সুমন (২৬), মুকুল শেখ (৫৩) ও কাড়াপাড়া এলাকার সোহাগ (২৫)। এছাড়াও হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে কবির (৫০) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক বলেন, হত্যার পর থেকেই অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত ছিল। শনিবার রাতে প্রধান আসামি ফরিদ শেখের ফুফুর বাড়ি থেকে একসঙ্গে ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। আধিপত্য বিস্তার ও মাদক ব্যবসা সংক্রান্ত দ্বন্দ্বে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামিদের আদালতে সোপর্দ করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে। এছাড়া এজাহার নামীয় অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

শুক্রবার (১১ নভেম্বর) রাত সোয়া ৯টার দিকে বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি পদ্ম পুকুরের মোড়ে ফরিদ নামে এক ব্যক্তির গুলিতে নিহত হন নুরে আলম তানু ভুঁইয়া। নিহত তানু বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি এলাকার মৃত আব্দুর রউফ ভুঁইয়ার ছেলে। তিনি বাগেরহাট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

শনিবার (১২ নভেম্বর) দুপুরে নামাজে জানাজা শেষে সরুই কবরস্থানে দাফন করা হয় সাবেক এই ছাত্র নেতাকে। হত্যার বিচার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে স্বেচ্ছাসেবক দল।