৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১১:১৭
শিরোনাম:

সাবেক স্বামীর বিচার চাইলেন ভুক্তভোগী স্ত্রী

রাজনৈতিক কাজে সহায়তা না করায় স্ত্রীকে তালাক দিয়ে সন্তানদের ভরন পোষন বন্ধ করায় জাতীয় পার্টির এমপি প্রার্থীর বিচার চেয়েছেন ভুক্তভোগি স্ত্রী ও তার মেয়ে। শনিবার সকালে বাংলাদেশ ক্র্ইাম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

লিখিত বক্তব্যে নুজহাতুন নেছা বলেন, তার স্বামী জামালপুর-২ আসনে জাতীয় পার্টি (রওশন এরশাদ) থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী মোস্তফা আল মাহমুদ। দীর্ঘ প্রায় ২৫ বছর সংসার করার পর ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া ২৩ ও ২০ বছরের দুটি সন্তান রেখে ২০২১ এর মার্চ মাসে এক নোটিশে তাকে তালাক দেন। বর্তমানে ছেলে মেয়ে নিয়ে তিনি অসহায় জীবন যাপন করছেন।

তিনি বলেন, তালাক দেয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই তিনি জিনাত আরা নামে আরেকজনকে বিয়ে করেন। ছাত্র জীবনে মোস্তফা আল মাহমুদ শিবির ও জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। ২০০৬ সালে তিনি বিএনপিতে যোগদান করেন। ২০১১ সাল পর্যন্ত বিএনপির বিভিন্ন পদে ছিলেন। এরপর তিনি জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়ে ২০১৮ সালে জামালপুর-২ থেকে এমপি পদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। এ অবস্থায় মোস্তফা আল মাহমুদের দৃষ্টান্তমুলক বিচারে জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। একই সাথে জাতীয় পার্টির প্রধান রওশন এরশাদের কাছে অনুরোধ করবো এমন একজন দায়িত্বহীন, চরিত্রহীন নারী লোভী ব্যক্তিকে আপনার দল থেকে মনোনয়ন না দিয়ে দল থেকে বহিস্কার আবেদন জানাচ্ছি।