৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১০:১১
শিরোনাম:

গজারিয়ায় চায়না দুয়ারী জালে ৫ ফুট লম্বা অজগর

নেয়ামুল হক নয়ন: 

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় মাছ ধরার চায়না দুয়ারী জালে পাচ ফুট লম্বা একটি অজগর সাপ ধরা পড়েছে। সাপটিকে প্রথমে রাসেল ভাইপার (চন্দ্রবোড়া) মনে করলেও পরবর্তীতে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও উপজেলা বন কর্মকর্তা সাপটি অজগর বলে নিশ্চিত করে।
বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) সকাল সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার মধ্য ভাটেরচর এলাকার বাসিন্দা কামাল মিয়ার চা দোকানের নিচে চায়না দুয়ারী জালে সাপটি দেখতে পান লোকজন। সাপটিকে অজগর মনে করে উপরে তোলা হলে এটিকে রাসেল ভাইপার বলে দাবি করে অনেকে। এ সময় সাপটি দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা সাপটি উদ্ধারে উপজেলা বন বিভাগে খবর দেয়।
স্থানীয় বাসিন্দা মাসুদ রানা বলেন,’ আমরা প্রথমে সাপটিকে অজগর মনে করেছিলাম তবে কিছু মানুষ ইন্টারনেট থেকে রাসেল ভাইপার সাপের ছবি দেখে সাপটি রাসেল ভাইপার বলে দাবি করতে থাকে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে উপজেলা বন বিভাগের লোকজন সাপটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
বিষয়টি সম্পর্কে উপজেলা বন কর্মকর্তা (ফরেস্টার) মোঃ আসাদুজ্জামান শফি বলেন, আমরা সাপটি উদ্ধার করে উপজেলায় নিয়ে আসি। প্রাথমিক পর্যেবক্ষণ এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে নিশ্চিত হই সাপটি অজগর রাসেল ভাইপার নয়। পরবর্তীতে সকালে ১১টার দিকে উপজেলা সংলগ্ন ফুলদী নদীতে সাপটিকে অবমুক্ত করা হয়।

অজগর সাপটি বনে অবমুক্ত না করে নদীতে ছেড়ে দেওয়ার কারণে জনমনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। এমনটি জানালো কয়েকজন স্থানীয় এলাকাবাসী।

গজারিয়া সরকারি পাইলট হাই স্কুলের অষ্টম ও নবম শ্রেণীর কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান অজগর সাপটি যেহেতু বড় আকৃতির সাপ যথাযথ কর্তৃপক্ষ নদীতে না ছেড়ে বনের মধ্যে ছেড়ে দিলে ভালো হতো। এখন থেকে নদী পারাপার ও যাওয়া আসার মধ্যে আতঙ্কে থাকব আমরা।

বিষয়টি সম্পর্কে গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন মো. আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন,শুনেছি একটি অজগর সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। বিস্তারিত কিছু জানিনা।